ফেসবুকসহ ৮৯ অ্যাপ নিষিদ্ধ করল ভারত

 ডেস্ক নিউজ
আপডেট: ২০২০-০৭-০৯ , ১১:৩৭ এএম

ফেসবুকসহ ৮৯ অ্যাপ নিষিদ্ধ করল ভারত

ভারত সরকার ৫৯টি চীনা অ্যাপ নিষিদ্ধ করার পর, এবার ৮৯টি অ্যাপ নিষিদ্ধ করল ভারতীয় সেনাবাহিনী। নিষিদ্ধের তালিকায় রয়েছে টিকটক, ফেসবুক, ইনস্টাগ্রামের মতো জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের অ্যাপ।

ভারতীয় সেনাবাহিনীর এক নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, আগামী ১৫ জুলাইয়ের মধ্যে ৮৯টি অ্যাপ থেকে ভারতীয় সেনাবাহিনীতে কর্মরত প্রত্যেককে তাদের অ্যাকাউন্ট মুছে ফেলতে হবে। বলা হয়েছে, নিরাপত্তার কারণেই ভারতীয় সেনাবাহিনীর এ সিদ্ধান্ত। নির্দেশ না মানলে, কড়া শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া এ খবর জানিয়েছে।

নিষিদ্ধের তালিকায় সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট ছাড়াও ই-কমার্স ও ডেটিং সাইটও রয়েছে। এ ছাড়া ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম, স্ন্যাপচ্যাট, উইচ্যাট, হাইক, টিকটক, ট্রু কলার, পাবজি, লাইকি ও টিন্ডারের মতো অ্যাপও রয়েছে।

ভবিষ্যতের সাইবারযুদ্ধের কথা মাথায় রেখে, নিরাপত্তার খাতিরেই এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনী কর্তৃপক্ষ।

গত ১৫ জুন পূর্ব লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় সংঘাতকে কেন্দ্রে করে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে ৫৯টি চীনা অ্যাপের ব্যবহার নিষিদ্ধ করে দেয় ভারত। তার মধ্যে বর্তমান সময়ের অত্যন্ত জনপ্রিয় অ্যাপ টিকটকও রয়েছে। গত ৩০ জুন জারি করা কেন্দ্রের এক নির্দেশিকায় তথ্য নিরাপত্তার স্বার্থেই অ্যাপগুলো বন্ধ করা হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়।

ভারতে নিষিদ্ধ হওয়ার আগে থেকেই মার্কিন কংগ্রেসের একাধিক সদস্য টিকটকের বিরুদ্ধে তথ্যচুরির অভিযোগ আনেন। যে কারণে যুক্তরাষ্ট্রও ভারতের পদাঙ্ক অনুসরণ করে চীনা অ্যাপগুলো নিষিদ্ধ করার চিন্তাভাবনা শুরু করেছে। গত সোমবার মার্কিন গণমাধ্যমে দেওয়া সাক্ষাৎকার মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বলেছিলেন, পুরো বিষয়টি আমাদের বিবেচনার মধ্যে রয়েছে।

এ ছাড়া একাধিক মার্কিন কংগ্রেস সদস্য মনে করেন, চীনের আইন অনুযায়ী, দেশের প্রতিটি কোম্পানিকে চীনের কমিউনিস্ট পার্টির কথা মেনে চলতে হবে। দেশের তদন্তকারী সংস্থাগুলোকে সাহায্য করতে হবে। তাই চীনের সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাপ ব্যবহারকারী মার্কিন নাগরিকদের তথ্য বেইজিংয়ের হাতে গেলে, তা যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তার জন্য বিপজ্জনক হবে।

এ ছাড়া নিরাপত্তার কারণে ফাইভজি বা পঞ্চম প্রজন্মের নেটওয়ার্কের ক্ষেত্রে চীনা প্রযুক্তি ব্যবহার নিষিদ্ধ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। একইসঙ্গে যুক্তরাজ্যও একই রকম চিন্তাভাবনা করছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যমের খবর, যুক্তরাজ্যের ফাইভজি প্রযুক্তির পরিকাঠামো তৈরি করছে হুয়াই। চীনা ওই কোম্পানিকে বাতিল করার কথা ভাবছে যুক্তরাজ্য।