বজ্রপাতে একদিনে নিহত ৮

 নিজস্ব প্রতিনিধি
আপডেট: ২০২১-০৬-০৭ , ০৭:৪৩ পিএম

বজ্রপাতে একদিনে নিহত ৮ ছবি । সিটিজেন নিউজ

বজ্রপাতে প্রতিদিনই মানুষ মারা যাচ্ছে। গতকালও দেশের ৪ জেলায় ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে বজ্রপাতে। এর মধ্যে আম কুড়াতে গিয়ে শিশুসহ ৬ জন নিহত হন।

সোমবার (৭ জুন) দুপুরে দোহার উপজেলার বিলাসপুর এলাকায় ফরিদুল ইসলাম (২০) নামে এক যুবক বজ্রপাতে মারা যায়। নিহত ফরিদুল পটুয়াখালী জেলার বাসিন্দা। সে বিলাসপুরে বাল্কহেডে কাজ করতেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সোমবার দুপুরে ভারী বর্ষণের সময় নদীতে একটি বাল্কহেডে কাজ করছিল ফরিদুল। এ সময় বজ্রপাতে গুরুতর আহত হয় সে। পরে তাকে উদ্ধার করে দোহার উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

দোহার উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ জসিম উদ্দিন ঘটনা সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বজ্রপাতে ঘটনাস্থলেই যুবকের মৃত্যু হয়।

নওগাঁয় কিশোরের মৃত্যু
নওগাঁর সাপাহারে বজ্রপাতে হোসেন আলী (১৪) নামের এক কিশোর নিহত হয়েছে। সোমবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে জাম পাড়তে গিয়ে মর্মান্তিক এই মৃত্যুর ঘটনাটি ঘটেছে। বজ্রপাতে মৃত হোসেন আলী সাপাহার উপজেলার সাহাবাজপুর গ্রামের আব্দুল মজিদের ছেলে।

প্রত্যক্ষ দর্শী ও গ্রামবাসী সূত্রে জানা যায়, ঘটনার দিন দুপুরের খাবার খেয়ে হোসেন আলী বাড়ীর পাশে রাস্তার ধারে একটি জামগাছ থেকে জাম পাড়ছিল। এ সময় হঠাৎ আকাশ থেকে বৃষ্টির সাথে বজ্রপাত ঘটলে হোসেন আলী বজ্রপাতের বিকট শব্দে ও ঝলকানীতে গাছ থেকে মাটিতে পড়ে যায়। 

এসময় লোকজন অচেতন অবস্থায় তাকে সাপাহার উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে নিয়ে এলে বিকেল ৪টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক হোসেন আলীকে মৃত ঘোষণা করেন৷

হিলিতে আম কুড়াতে গিয়ে আপন দুই বোনের মৃত্যু

দিনাজপুরের হিলিতে বাড়ির সামনে আম কুড়াতে গিয়ে বজ্রপাতে মহসিনা আকতার (১২) ও মুবাশ্শিরা আকতার (৭) নামের আপন দুই বোনের মৃত্যু হয়েছে। এদিকে আপন দুই বোনের মৃত্যুতে ওই পরিবারে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

সোমবার বিকেল সাড়ে ৪টায় হিলির লোহাচড়া গ্রামে ওই ঘটনাটি ঘটে। তারা ওই গ্রামের মফিজ উদ্দিনের মেয়ে। মহসিনা আকতার হিলির ডাঙ্গাপাড়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রী ও মুবাশ্শিরা আকতার লোহাচড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণীর ছাত্রী।

স্থানীয়রা জানান, সোমবার বিকেলের দিকে হঠাৎ করে ঝড় ও বৃষ্টি শুরু হয়। এ সময় তাদের বাড়ির সামনের আম গাছ থেকে আম পড়তে লাগলে আম কুড়াতে যায় মহসিনা আকতার ও মুবাশ্শিরা আকতার। এসময় হঠাৎ করে বিকট শব্দে বজ্রপাত হলে দুজনেই গুরুত্বর আহত হয়। সাথে সাথে পরিবারের লোকজন তাদেরকে উদ্ধার করে হাকিমপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত্ বলে ঘোষণা করেন।

রাজশাহীতে বজ্রপাতে নিহত ৪ 
রাজশাহী প্রতিনিধি জানান, রাজশাহীর চারঘাট উপজেলার চক কাপাশিয়া গ্রামে বজ্রপাতে চারজন নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন আরও দুইজন। তাদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সোমবার বিকেলে ঝড়-বৃষ্টির সময় এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন, চক কাপাশিয়া গ্রামের আলেয়া বেগম (৫৫), মুক্তা খাতুন (৩৫), পরশ (১০) ও সোহান (১২)। 

চারঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দা সমিরা জানান, ঝড়-বৃষ্টির সময় তারা সবাই একটি বাগানে আম কুড়াচ্ছি। এ সময় বজ্রপাতে ঘটনাস্থলে আলেয়া ও মুক্তা মারা যান। 

আহত অবস্থায় উদ্ধার করে করে চারজনকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান সোহান ও পরশ।